Thursday, December 18, 2008

সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা কে দেবে?

নির্বাচনী আমেজে পুরোপুরি রমরমা সারা বাংলাদেশ। ২৯শে ডিসেম্বর হতে যাচ্ছে বহুল অপেক্ষার অবসান। ঘটতে যাচ্ছে রাজনৈতিক পটপরিবর্তন। হয়তবা মহাজোট কিংবা চারদলীয় জোট। একজোট নাহয় আরেক জোট ক্ষমতায় আসবে। কিন্তু এতে কি হবে? সংখ্যালঘুরা যারা বাংলাদেশের হিন্দু, খ্রীষ্টান, বৌদ্ধ থেকে শুরু করে নানা ছোটখাট গোষ্ঠীদের দ্বারা গঠিত তাদের ভাগ্যের কি কোনো পরিবর্তন হবে?
অনেকে বলেন আওয়ামী লীগ হচ্ছে সংখ্যালঘুদের বন্ধু। আমার প্রশ্ন, বন্ধুই যদি হতো, তাহলে শত্রুসম্পত্তি আইন কেন তাদের সময়ে বলবৎ ছিল? শুধুমাত্র ভারতে চলে গেলেই একটি হিন্দু পরিবারের সম্পত্তি এই আইনের দ্বারা সরকারের অধীনস্ত হয়ে যাবে? তার আগে দেখার বিষয় কেনই বা ২০% সংখ্যালঘু থেকে আজ ১০% এরও কম সংখ্যালঘু বাংলাদেশে? কেন তারা ঘর-বাড়ি, জমি-জমা ছেড়ে বা দখলের ভয়ে বা এলাকার প্রভাবশালীদের দাপটে মাতৃভূমি ছেড়ে যাবে? যতটা অধিকার একজন সংখ্যাগরিষ্ঠের আছে বাংলাদেশে সুন্দরভাবে বসবাসের তেমনি করে কি অধিকার নেই একজন সংখ্যালঘুর?
এখন নির্বাচনের সময়ে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ভয়, ২০০১ এর ঘটনার পুনরাবৃত্তি। সেসময় যেভাবে সংখ্যালঘুরা নির্যাতিত, নিষ্পেশিত হয়েছিল নির্বাচন পরবর্তী সময়কালে তা ভাবনাতীত। কিন্তু এবার কে দেবে তাদের নিরাপত্তা? কে শোনাবে আশার বাণী? কে বলবে ভয় পেয়ো না মা, মাসি, দাদা, মামা, কেউ তোমাদের ওপর হামলা করবে না নির্বাচন সময়ে বা এর পরে? কিংবা কে জানে আমাদের সকলেরই অজান্তে হয়তবা কেউ হুমকির মুখে ইতিমধ্যেই ভোট দেয়া থেকে বিরত থাকবে?

No comments:

Post a Comment