Thursday, January 08, 2009

এক চালাক বালকের অপরাধ স্বীকার

ছোট্ট বালক মিঠু তার জন্মদিনে মা কি দিবে সেটা মনে করিয়ে দিতে রান্নাঘরে গেল। মাকে বলল, "মা, আমি আমার জন্মদিনে একটা সাইকেল চাই।" এমনিতেই মিঠু দুষ্ট প্রকৃতির বালক একে স্কুলে, আবার ঘরেও। মা ওকে বলল, "তোমার রুমে যাও মিঠু এবং চিন্তা করো তুমি কেমন আচরণ করেছ গত বছরে। তারপর ঈশ্বরের নিকট চিঠি লিখ এবং তাকে বলো কেন তুমি একটা উপহার চাও তোমার জন্মদিনে।"

এই শুনে সঙ্গে সঙ্গে মিঠু নিজ রুমে গিয়ে চিঠি লিখতে বসে গেল।

চিঠি-১
শ্রদ্ধেয় ঈশ্বর,
আমি এই বছরটিতে খুব ভালো একটি ছেলে ছিলাম এবং আমার জন্মদিনে একটা লাল রঙের সাইকেল পেতে চাই।
তোমারই বন্ধু,
মিঠু

মিঠু জানত এ কথা সত্য নয়। ও সারা বছরে খুব ভালো ছেলের মতো আচরণ করেনি। এই ভেবে ও সঙ্গে সঙ্গে চিঠিখানা ছিঁড়ে ফেলল।

চিঠি-২
শ্রদ্ধেয় ঈশ্বর,
আমি তোমার বন্ধু মিঠু। আমি সারা বছরে একটি ভালো ছেলে ছিলাম। আমি আমার এবারের জন্মদিনে একটা লাল সাইকেল চাই।
ধন্যবাদ।
তোমার বন্ধু
মিঠু

মিঠু জানত এও সত্য নয়। তাই এটিকেও ও ছিঁড়ে ফেলল।

চিঠি-৩
শ্রদ্ধেয় ঈশ্বর,
আমি এ বছর "ওকে" টাইপের ছেলে ছিলাম। আমি তাও একটি সাইকেল চাই আমার এবারের জন্মদিনে।
মিঠু

মিঠু এটিও সঠিক নয় ভেবে এটিকেও ছিঁড়ে ফেলল।

চিঠি-৪
ঈশ্বর,
আমি জানি গেল বছর আমি তেমন ভালো ছেলে ছিলাম না। আমি লজ্জিত। কিন্তু তুমি যদি আমাকে একটা সাইকেলের বন্দোবস্ত করো তাহলে আমি ভালো ছেলে হয়ে যাব। প্লিজ!
ধন্যবাদ
মিঠু

মিঠু জানত যদিও এই চিঠিখানা সত্যি হলেও হতে পারে, কিন্তু এমন চিঠি তাকে সাইকেল পেতে কোনোরকম সাহায্য করবে না। শীঘ্রই ও নিচে নেমে মাকে বলল ও এখন গীর্জায় যাবে। মা ভাবল ছেলে মনে হয় এবার সুপথে আসবে। মা শুধু বলল, "ঠিক আছে। কিন্তু দুপুরের খাবারের আগেই ঘরে ফিরবে।"

মিঠু গীর্জার বেদিতে গিয়ে উঠল। আশপাশে দেখে নিল কেউ আছে কিনা। কেউ নেই দেখে মিঠু মেরীর একটা মূর্তি নিয়ে ছুটল। হাতের ফাঁকে নিয়ে গীর্জা থেকে পালালো।
নিজ রুমে পৌঁছেই খাতা-কলম নিয়ে চিঠি লিখতে বসল।

চিঠি-৫
ঈশ্বর,
আমি তোমার মাকে কিডন্যাপ করেছি। তুমি যদি তাকে পেতে চাও, সাইকেল পাঠিয়ে দাও!!!

সূত্র: তড়িৎ বার্তা

No comments:

Post a Comment