Wednesday, October 03, 2012

মোহাম্মদ হলে অসুবিধা, দুর্গা হলে কিছুই না?








ধর্মীয় আঘাত দেয়াটা এখন একটা রীতিমত স্বাভাবিক ব্যাপার হয়ে গেছে দেখছি। স্যাম ব্যাসিলের মোহাম্মদ নবীজীকে নিয়ে তৈরি করা ভিডিও চিত্রটি সারা বিশ্বের মুসলিমদের ক্রোধিত করে তুলেছে। এটা সত্যিই নেক্কারজনক বিষয়। এ নিয়ে বাংলাদেশের প্রতিবাদের ফুটেজ আমেরিকার টিভিতেও দেখিয়েছে।

কিন্তু ফেইসবুকে আজ কিছু মাস ধরে দেবী দুর্গাকে নিয়ে অসভ্য পেইজ/গ্রুপ খোলা আছে। কই এ নিয়ে তো কিছুই হচ্ছে না? বরং যেসব হিন্দুরা/মুসলিম বা যারা সভ্য প্রজাতির তারা সবাই এগুলোকে রিপোর্ট করেছে। এর চেয়ে বেশী কিই বা করবে? নাকি মিছিল-মিটিং, প্রতিবাদ, সমাবেশ - এসব করলে ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ এসবগুলোকে সরাবে?

আমি নিজেও info@facebook.com এ ইমেইল করেছি। তারপরও এগুলোকে সরানো হয়নি। কারণ হিসেবে বুঝতে পারি এগুলো বাংলায়/বাংলিশে লেখা। ফলে ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ কতটা এগুলোর অর্থ বুঝতে পারে/পারছে, সেটা বলা যায় না।

কিন্তু আমার বলার বিষয় হলো, এই যে বিশ্বব্যাপী মুসলিম দুনিয়া একটা ভিডিওকে নিয়ে যা শুরু করেছে (বাংলাদেশসহ), কই হিন্দুদের দেবীকে নিয়ে (ঈশ্বরসম) অকথ্য গ্রুপ/পেইজকে নিয়ে তো বাংলাদেশ/অন্য কোনো স্থাণে এতো প্রতিবাদ, সমাবেশ হচ্ছে না। বরং শান্তিপূর্ণভাবে ফেইসবুকের কাছে রিপোর্ট করা হয়েছে।

এর মানে কি এই দাঁড়ায় যে, হিন্দুরা শান্তিপূর্ণ আর মুসলিমরা নয়? হতে পারে। আবার এও হতে পারে, ধর্মতে আঘাত দিলে মুসলিমদেরই বেশী লাগে, হিন্দু/অন্যদের হয়ত এতটা না। সহনশীল ধার্মিক যারা তারা ধর্ম তার নিজেরই হোক বা অপরের হোক তাকে সম্মান করতে জানে। স্যাম ব্যাসিল বা এইসব ফেইসবুকের গ্রুপ/পেইজের তৈরিকারকরা শুধু নিজেদের ধর্মকেই বড় করে দেখে। পরধর্মকে শ্রদ্ধা করতে এতটুকুও জানে না।

2 comments:

  1. প্রিয় বন্ধু, আপনার অনুভূতি আমাকে ছুয়ে গেল। তবে আপনার ব্লগে দেশের খবরাখবর অনেক কম। বিশেষত সাম্প্রদায়িক বিভিন্ন সমস্যা, ভাবনা নিয়ে আপনার লেখা কম। হয়তো আপনার ভাববার তেমন সময় নেই। তারপরও যদি একটু সময় দিতেন তাহলে ভাল হত। কারণ আপনি আমেরিকায় থাকেন। আপনি এমন অনেক কিছু লিখতে পারেন, যা আমরা বাংলাদেশে বসে লিখতে পারিনা। একটা আতংক এসে আমাদের উপরে ভর করে। তাই আপনার হাত থেকে আরও শক্তিশালী লেখনি চাই।

    ধন্যবাদ

    ReplyDelete
    Replies
    1. ধন্যবাদ দাদা।
      আসলে লেখার চেষ্টা করি। সময় পেলেই সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা-হাঙ্গামা এসব জানতে পারলে নিজের অনুভুতি ব্যক্ত করতে চেষ্টা করি ব্লগপোস্টের মাধ্যমে। আশা করছি সামনের দিকে আরো ঘন ঘন লিখব।
      আর হ্যাঁ, ঠিক বলেছেন। আমেরিকায় আছি বলে লেখাটা শুধু সহজই না, দায়িত্বের মতো মনে করি। দেশের মানুষ তো মুখ বুজে সহ্য করতে বাধ্য হয়। সত্যিই বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের ভবিষ্যত ক্ষীণ হয়ে আসছে :(

      Delete