Saturday, May 11, 2013

এতে কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হবে না

এই ছবির ক্যাপশনে যা লেখা ছিলো:
নবীজী বলেছেন-ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করো না।
কথাটা নিজ ধর্ম ও অন্যের ধর্ম উভয় ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

ভাবতেই খারাপ লাগছে একজন মুসলিম এমন কাজ করতে পারে, "Muslim Brotherhood" শব্দটা উচ্চারণ করতেই এখন থেকে দ্বিধা বোধ হবে...এমন কাজ আমার ভাই করতে পারে না।

মুসলিম ভাইদের বলছি-দেখুন এটাই জামাত-শিবির-হেফাজতের আসল রুপ...তারা কতটা নিচু মনের মানুষ। একবার ভেবে দেখুন কোন হিন্দু যদি নবীজীকে নিয়ে কটুক্তি করতো,তার কোন কাল্পনিক ছবি একে কোন প্রোপাগান্ডা ছড়াতো,আপনি কি করতেন?? নিশ্চয় তাকে খুন করে ফেলতে চাইতেন,সেটাই স্বাভাবিক...নিজের ধর্মের অপমান কেউি সহ্য করতে পারেনা। এখন এই ছবি দেখে কোন হিন্দু যদি কিছু বলে আপনার উত্তর কি হবে?? কেউ যদি এটার প্রতিশোধ নিতে যায় তবে কি হবে???একবার ভেবে দেখুন তারা আমাদের ধর্মকে কিভাবে অন্যের চোখে ছোট করছে?! নবিজীকে নিয়ে বাজে ভিডিও বের হলে আমরা সবাই প্রতিবাদ করছিলাম,কিন্তু এর প্রতিবাদে কি আমরা শামিল হবো না?এটা কি আমাদের ধর্মের অপমান নয়???আর আপনি যদি আই ছবি দেখে মনে মনে বলেন "ভালোই হইছে/ঠিক আছে" তবে আপনি মুসলিম না। সময় এসেছে এদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর,মুসলিম রুপী এই ভন্ডদের হাত থেকে আমাদের ধর্মকে বাচাতেই হবে।

হিন্দু ভাইদের বলছি-প্রথমেই ক্ষমা করবেন এমন পোস্টের জন্য,আপনরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাতে পারেন,কিন্তু এতে কি লাভ হবে জানিনা,হয়তো সরকার উলটো আপনাকেই ধরবে...কিছুই করতে পারবেন না।আমরা দূর থেকে অনেক সান্তনা দিবো,অনেক কথা বল্বো,হয়তো কেউ কেউ প্রতিবাদও করবো কিন্তু কোন কাজ হবেনা এতে...কোনো ধার্মিক এমন কাজ করতে পারে না,দাঙ্গা বাধাতেই তাদের এই প্রচার,তারা চায় আপনারা ক্রুদ্ধ হয়ে কিছু করুন,তারপর তারা আবার আপনাদের উপর জুলুম চালানোর একটা ইস্যু পাক।

যারা এটা করছিস তাদের কিছু বলার নেই...তোদের জন্ম ডাস্টবিনে,তোদের মৃত্যুও সেখানে হবে,মরার পর তোদের স্থানও সেখানে হবে।

পুর্বে এমন অনেক ঘটনা দেখেছি,সামান্য কথা কাটাকাটিতেও গেঞ্জাম বেধে একে অন্যের বিরুদ্ধে পেজ/আইডি খুলে বাজে প্রচার চালাইছে। দয়া করে এসব থেকে বিরত থাকুন।অনেকে এসব পোস্ট দেখলেই ভারতের কথা টানেন,বলেন ভারতে ওরা আমাদের ধর্মকে গালি দেয় তাই আমরাও দিছি। আমি বলি-ভাই ভারত নিয়ে কেনো এতো মাথা ব্যাথা??নিজের দেশ নিয়ে ভাবুন,ওরা কুত্তা হলে আমরাও হবো??যে দেশগুলাতে ধর্মের টানাহিচড়া নেই সেগুলোর কথা তো কখনো বলেন না...আগে নিজে ভালো হন,তারপর অন্যের কথা ভাবুন।

আল্লাহ্‌ এদের ক্ষমা করো,এদের তুমি সঠিক পথ দেখাও।
এখন এ নিয়ে আমি নিজে একজন হিন্দু হয়ে কী আর বলব! শুধু এটুকুই জানি যে, যত কুরুচিপূর্ণ, কটাক্ষপূর্ণ, বিভ্রান্তিকর, অশ্লীল ছবি, ভিডিওই হোক না কেন, তা যদি হিন্দুধর্মকে নিয়ে করে কমপক্ষে বাংলাদেশে এর জন্য কোনো প্রতিবাদ হবে না। প্রতিবাদ এই অর্থে বোঝাচ্ছি যে, আজ কোনো হিন্দুরা দল-বল, লাঠি-সাটা নিয়ে মুসলিমদের ঘর-বাড়ি জ্বালানো, পোড়ানো, ভাঙচুর করবে না। কোনো হরতাল, অবরোধের মতো কর্মসূচী কেউ ঘোষণা করবে না। সেটা হিন্দু কোনো সংগঠন হোক, কিংবা হিন্দুদের পার্টি বলে আখ্যা দেয়া আওয়ামী লীগও করবে না। উল্টো হিন্দু ভোট পেতে বিএনপি বা জাতীয় পার্টিও কিছু করবে না। 

প্রশ্ন হলো, এমনটি তো করছে আমাদের চারপাশের লোকজনরাই। কই সচেতন মুসলিম হিসেবে, পরের ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে ক'জন মুসলিম এর প্রতিবাদে রাস্তায় নামছে? ধর্মীয় অনুভূতি জিনিসটা কি শুধু বিশ্বে মুসলিমদেরই আছে? কিংবা খ্রীষ্টানদের? আজ নবীজীকে নিয়ে কার্টুন প্রচারের ফলে বাংলাদেশে ফেইসবুক, ইউটিউব বন্ধ করে দিতে পারে। অথচ এসব ছবির কারণে তো কখনো ফেইসবুক বন্ধ হয় না। এসব ছবি তো শুধু এই একটা না, আরো নানান ফেইসবুক পেইজ, গ্রুপে ছড়িয়ে বেড়াচ্ছে। কিন্তু সেগুলোর জন্য কি কোনো জাতি-ধর্ম-বর্ণের কোনো দিক দিয়েও আঘাত লাগে না? নাকি তারা ধরেই নিয়েছে হিন্দুদের ধর্মীয় অনুভূতি বলে কিছু নেই?

নবীজী তো একজন মানুষ ছিলেন। আর এখানে যাকে রূপায়ন করা হয়েছে তিনি তো একজন দেবী যার স্থাণ কোনো ধর্মীয় গুরু, যাজক, পন্ডিত বা ধর্মপ্রবক্তার চেয়ে বড়। তাহলে সেই স্থাণের কাউকে নিয়ে কটুক্তি বা এমন ছবি তৈরি করে ফেইসবুকে প্রচার সেটাতে বুঝি কারো কিছু লাগে না? 

আমি ধন্যবাদ দিতে চাই Voice of 71 - ৭১ এর কন্ঠ পেইজের সমন্বয়ককে। তিনি বা তারা কমপক্ষে বিষয়টি প্রচার করে মানুষের চিন্তা-চেতনা যে কতটা নীচ, কুৎসিত হতে পারে তার উদাহরণ স্বরূপ এটি প্রকাশ করেছেন। তারা বোঝাতে চেয়েছেন জামায়াত-এ-ইসলাম ও ছাত্রশিবিরের মতো গ্রুপ কতখানি হীনমস্তিষ্কধারী হলে এমন ছবি প্রকাশ করে। আসলে এদের মতো সমন্বয়করা আছেন বলেই হয়ত ৯০ শতাংশেরও বেশী মুসলিমপ্রধান বাংলাদেশে হিন্দুরা কোনো মতে টিকে আছে।

No comments:

Post a Comment