Sunday, February 09, 2014

ভগবান শিবের বিচরণ ভূমিসমূহ



দেবাদিদেব যেই আটষট্টি স্থানে যে রুপে সাক্ষাৎ দেন তা বর্ণনা করা হইল:


বারানসি তে মহাদেব,প্রয়াগে মহেশ্বর, নৈমিষ ক্ষেত্রে দেবদেব, গয়াতীর্থে প্রপিতামহ, কুরুক্ষেত্রে কালেশ,প্রভাসে শশিভূষণ, পুষ্করে অয়োগন্ধ,বিমলেশ্বরে বিশ্ব,অট্টহাসে মহানাদ,মরুকোটে মহোৎকট,শঙ্কুকর্ণে মহাতেজ,গোকর্ণে মহাবল, রুদ্রকোটীতে মহা যোগী,স্থলেশ্বরে মহালিঙ্গ,অবন্তীতে মহাকাল, মধ্যমেশ্বরে শর্ব্ব,কেদারে ঈশানদেব, হিমালয়ে রুদ্র,সুবর্নক্ষে সহস্রাক্ষ,বৃষে বৃষভধ্বজ,ভৈরবে ভৈরবাকার, ভদ্রপথে ভদ্র,কনখলে উগ্র,ভদ্রকর্ণহ্রদে শিব,দেবদারু বনে ভিন্ন,কভিজঙ্গলে চন্ড,সুরন্ডে উর্দ্ধকেতু,মঙ্গলান্ডে কপদ্দী।কৃত্তিবাসে বরদ,আম্রাড়িকেশ্বরে সূক্ষ্ম,কালঞ্জরে নীলকন্ঠ,মন্ডলেশ্বরে শ্রীকন্ঠ,ধ্যনসিদ্ধেশ্বরে যোগ,উত্তরেশ্বরে গায়ত্র,কাশ্মীরে বিজয়,মরুকেশ্বরে জয়,যমের অঙ্গে স্থাণু,করবীরকে কাপিল,কায়াবতারে লগুড়ি,দেবিকায় উমাপতি ও হরিশ্চন্দ্রেশ্বর,পুরচন্দ্রে শঙ্কর, কালেশ্বরে জটী,কুক্কুটকেশরে সৌম্য,সন্ধ্যায় তাম্রক,বদরীতে ত্রিলোচন, জলেশ্বরে ত্রিশূল,শ্রীশৈলে ত্রিপুরান্তক,লেপনে পশুপতি, অঙ্গেশ্বরে দীপ্ত,গঙ্গাসাগরে অমর,পাতালে হাটকেশ্বর,কর্নিকারে গন্যধ্যক্ষ,কৈলাসে ত্রিপুরান্তক,হেমকূটে বিরুপাক্ষ,গন্ধমাদনে ভুর্ভুব,দিড়ীশ্বরে অনল,স্থলেশ্বরে জ্বলম্লিঙ্গ,ভূতেশ্বরে গ্ণ্যধ্যক্ষ,কিরাতকে কৈরাত, বিন্ধ্যাচলে দানববিনাশকারী বারাহ, গঙাহ্রদে হিমস্থান,বড়বামুখে মানব, তীর্থে শ্রেষ্ঠিকোটীশ্বর, ইষ্টকাপথে বিশিষ্ট,কুকুসুপুরে প্রহাস,লঙ্কায় অলকেশ্বর, অমরকন্টকে ওঙ্কার এবং গোদাবরীতে ভীম। যে ব্যক্তি নিয়ম পূর্ব্বক শুদ্ধভাবে দুই সন্ধ্যা পাঠ করে, সে এককালে দশ অশ্বমেধ যঞ্জের ফল লাভ করে।

হর হর মহাদেব


(লেখক - সুমিত ভট্টাচার্য্য)

No comments:

Post a Comment