Thursday, July 31, 2014

সুচিত্রা সেনের পৈতৃক বাড়ি পুনরুদ্ধার

৩৬ বছর পর দখলমুক্ত হলো সুচিত্রা সেনের বাড়ি। বুধবার এ দখলমুক্ত করা হয়।


পাবনায় অবস্থিত এ বাড়িতে ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউট নামে একটি প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছিল জামায়াতের নেতারা। অবশেষে আজ বুধবার জেলা প্রশাসন বাড়িটি দখলমুক্ত করেছে।


গত বৃহস্পতিবার মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের পাবনার পৈত্রিক বাড়ি দখলমুক্ত করে অবিলম্বে 'সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা' স্থাপনে সরকারকে নির্দেশ দেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।


সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলমুক্ত করার বিষয়ে প্রকাশিত আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায়ে ওই নির্দেশ দেয়া হয়। পাশাপাশি হাইকোর্টের রায়ের পর ভুল তথ্য দিয়ে সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলে রাখায় আপিলকারী ইমাম গাযযালি ট্রাস্ট্রের মহাসচিব আবিদ হাসান দুলাল ও তার আইনজীবী ইমরান সিদ্দিকীকে তিরস্কার করা হয়েছে।


জনস্বার্থে করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১২ সালের ২৬ জুলাই ইমাম গাযযালি ইনস্টিটিউটের দখলে থাকা সুচিত্রা সেনের পৈত্রিক বাড়িটি দখলমুক্ত করে 'সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা' স্থাপনে সরকারকে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।


প্রসঙ্গত, জামায়াত পরিচালিত ইমাম গাযযালি ইনস্টিটিউিট সুচিত্রা সেনের পাবনার পৈত্রিক বাড়িটি একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলে রূপান্তর করে ট্রাস্টের নামে বহু বছর ধরে দখলে রেখেছে। ২০০৯ সালের ১২ জুন পাবনার তৎকালীন জেলা প্রশাসক ইমাম গাজ্জালি ট্রাস্টকে উচ্ছেদের নোটিশ দেয়। কিন্তু তারা দখল ছাড়েনি। আপিল বিভাগের রায় অনুসারে এখন  ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউিটকে উচ্ছেদে আর কোনো বাধা রইল না।


গত ১৭ জানুয়ারি কলকাতায় মারা যান বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি সুচিত্রা সেন। ১৯৩১ সালের ৬ এপ্রিল জন্ম নেয়া সুচিত্রার শৈশব ও কৈশোর কেটেছে পাবনা সদর উপজেলার গোপালপুর মহল্লার হেমসাগর  লেনের ওই বাড়িতে।


 ১৯৫১ সালের মাঝামাঝি সময়ে সুচিত্রা সেনের বাবা পাবনা থেকে সপরিবারে কলকাতায় চলে যান।
- See more at: http://www.dhakatimes24.com/2014/07/16/30950#sthash.pQCT6uXk.dpuf
৩৬ বছর পর দখলমুক্ত হলো সুচিত্রা সেনের বাড়ি। বুধবার এ দখলমুক্ত করা হয়।


পাবনায় অবস্থিত এ বাড়িতে ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউট নামে একটি প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছিল জামায়াতের নেতারা। অবশেষে আজ বুধবার জেলা প্রশাসন বাড়িটি দখলমুক্ত করেছে।


গত বৃহস্পতিবার মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের পাবনার পৈত্রিক বাড়ি দখলমুক্ত করে অবিলম্বে 'সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা' স্থাপনে সরকারকে নির্দেশ দেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।


সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলমুক্ত করার বিষয়ে প্রকাশিত আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায়ে ওই নির্দেশ দেয়া হয়। পাশাপাশি হাইকোর্টের রায়ের পর ভুল তথ্য দিয়ে সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলে রাখায় আপিলকারী ইমাম গাযযালি ট্রাস্ট্রের মহাসচিব আবিদ হাসান দুলাল ও তার আইনজীবী ইমরান সিদ্দিকীকে তিরস্কার করা হয়েছে।


জনস্বার্থে করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১২ সালের ২৬ জুলাই ইমাম গাযযালি ইনস্টিটিউটের দখলে থাকা সুচিত্রা সেনের পৈত্রিক বাড়িটি দখলমুক্ত করে 'সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা' স্থাপনে সরকারকে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।


প্রসঙ্গত, জামায়াত পরিচালিত ইমাম গাযযালি ইনস্টিটিউিট সুচিত্রা সেনের পাবনার পৈত্রিক বাড়িটি একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলে রূপান্তর করে ট্রাস্টের নামে বহু বছর ধরে দখলে রেখেছে। ২০০৯ সালের ১২ জুন পাবনার তৎকালীন জেলা প্রশাসক ইমাম গাজ্জালি ট্রাস্টকে উচ্ছেদের নোটিশ দেয়। কিন্তু তারা দখল ছাড়েনি। আপিল বিভাগের রায় অনুসারে এখন  ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউিটকে উচ্ছেদে আর কোনো বাধা রইল না।


গত ১৭ জানুয়ারি কলকাতায় মারা যান বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি সুচিত্রা সেন। ১৯৩১ সালের ৬ এপ্রিল জন্ম নেয়া সুচিত্রার শৈশব ও কৈশোর কেটেছে পাবনা সদর উপজেলার গোপালপুর মহল্লার হেমসাগর  লেনের ওই বাড়িতে।


 ১৯৫১ সালের মাঝামাঝি সময়ে সুচিত্রা সেনের বাবা পাবনা থেকে সপরিবারে কলকাতায় চলে যান।
- See more at: http://www.dhakatimes24.com/2014/07/16/30950#sthash.pQCT6uXk.dpuf
৩৬ বছর পর দখলমুক্ত হলো সুচিত্রা সেনের বাড়ি। বুধবার এ দখলমুক্ত করা হয়।


পাবনায় অবস্থিত এ বাড়িতে ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউট নামে একটি প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছিল জামায়াতের নেতারা। অবশেষে আজ বুধবার জেলা প্রশাসন বাড়িটি দখলমুক্ত করেছে।


গত বৃহস্পতিবার মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের পাবনার পৈত্রিক বাড়ি দখলমুক্ত করে অবিলম্বে 'সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা' স্থাপনে সরকারকে নির্দেশ দেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।


সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলমুক্ত করার বিষয়ে প্রকাশিত আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায়ে ওই নির্দেশ দেয়া হয়। পাশাপাশি হাইকোর্টের রায়ের পর ভুল তথ্য দিয়ে সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলে রাখায় আপিলকারী ইমাম গাযযালি ট্রাস্ট্রের মহাসচিব আবিদ হাসান দুলাল ও তার আইনজীবী ইমরান সিদ্দিকীকে তিরস্কার করা হয়েছে।


জনস্বার্থে করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১২ সালের ২৬ জুলাই ইমাম গাযযালি ইনস্টিটিউটের দখলে থাকা সুচিত্রা সেনের পৈত্রিক বাড়িটি দখলমুক্ত করে 'সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা' স্থাপনে সরকারকে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।


প্রসঙ্গত, জামায়াত পরিচালিত ইমাম গাযযালি ইনস্টিটিউিট সুচিত্রা সেনের পাবনার পৈত্রিক বাড়িটি একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলে রূপান্তর করে ট্রাস্টের নামে বহু বছর ধরে দখলে রেখেছে। ২০০৯ সালের ১২ জুন পাবনার তৎকালীন জেলা প্রশাসক ইমাম গাজ্জালি ট্রাস্টকে উচ্ছেদের নোটিশ দেয়। কিন্তু তারা দখল ছাড়েনি। আপিল বিভাগের রায় অনুসারে এখন  ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউিটকে উচ্ছেদে আর কোনো বাধা রইল না।


গত ১৭ জানুয়ারি কলকাতায় মারা যান বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি সুচিত্রা সেন। ১৯৩১ সালের ৬ এপ্রিল জন্ম নেয়া সুচিত্রার শৈশব ও কৈশোর কেটেছে পাবনা সদর উপজেলার গোপালপুর মহল্লার হেমসাগর  লেনের ওই বাড়িতে।


 ১৯৫১ সালের মাঝামাঝি সময়ে সুচিত্রা সেনের বাবা পাবনা থেকে সপরিবারে কলকাতায় চলে যান।
- See more at: http://www.dhakatimes24.com/2014/07/16/30950#sthash.pQCT6uXk.dpuf
৩৬ বছর পর দখলমুক্ত হলো সুচিত্রা সেনের বাড়ি। বুধবার এ দখলমুক্ত করা হয়।


পাবনায় অবস্থিত এ বাড়িতে ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউট নামে একটি প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছিল জামায়াতের নেতারা। অবশেষে আজ বুধবার জেলা প্রশাসন বাড়িটি দখলমুক্ত করেছে।


গত বৃহস্পতিবার মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের পাবনার পৈত্রিক বাড়ি দখলমুক্ত করে অবিলম্বে 'সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা' স্থাপনে সরকারকে নির্দেশ দেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।


সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলমুক্ত করার বিষয়ে প্রকাশিত আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায়ে ওই নির্দেশ দেয়া হয়। পাশাপাশি হাইকোর্টের রায়ের পর ভুল তথ্য দিয়ে সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলে রাখায় আপিলকারী ইমাম গাযযালি ট্রাস্ট্রের মহাসচিব আবিদ হাসান দুলাল ও তার আইনজীবী ইমরান সিদ্দিকীকে তিরস্কার করা হয়েছে।


জনস্বার্থে করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১২ সালের ২৬ জুলাই ইমাম গাযযালি ইনস্টিটিউটের দখলে থাকা সুচিত্রা সেনের পৈত্রিক বাড়িটি দখলমুক্ত করে 'সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা' স্থাপনে সরকারকে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।


প্রসঙ্গত, জামায়াত পরিচালিত ইমাম গাযযালি ইনস্টিটিউিট সুচিত্রা সেনের পাবনার পৈত্রিক বাড়িটি একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলে রূপান্তর করে ট্রাস্টের নামে বহু বছর ধরে দখলে রেখেছে। ২০০৯ সালের ১২ জুন পাবনার তৎকালীন জেলা প্রশাসক ইমাম গাজ্জালি ট্রাস্টকে উচ্ছেদের নোটিশ দেয়। কিন্তু তারা দখল ছাড়েনি। আপিল বিভাগের রায় অনুসারে এখন  ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউিটকে উচ্ছেদে আর কোনো বাধা রইল না।


গত ১৭ জানুয়ারি কলকাতায় মারা যান বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি সুচিত্রা সেন। ১৯৩১ সালের ৬ এপ্রিল জন্ম নেয়া সুচিত্রার শৈশব ও কৈশোর কেটেছে পাবনা সদর উপজেলার গোপালপুর মহল্লার হেমসাগর  লেনের ওই বাড়িতে।


 ১৯৫১ সালের মাঝামাঝি সময়ে সুচিত্রা সেনের বাবা পাবনা থেকে সপরিবারে কলকাতায় চলে যান।
- See more at: http://www.dhakatimes24.com/2014/07/16/30950#sthash.pQCT6uXk.dpuf

৩৬ বছর পর দখলমুক্ত হলো সুচিত্রা সেনের বাড়ি। বুধবার এ দখলমুক্ত করা হয়।


পাবনায় অবস্থিত এ বাড়িতে ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউট নামে একটি প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছিল জামায়াতের নেতারা। অবশেষে আজ বুধবার জেলা প্রশাসন বাড়িটি দখলমুক্ত করেছে।


গত বৃহস্পতিবার মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের পাবনার পৈত্রিক বাড়ি দখলমুক্ত করে অবিলম্বে 'সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা' স্থাপনে সরকারকে নির্দেশ দেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।


সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলমুক্ত করার বিষয়ে প্রকাশিত আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায়ে ওই নির্দেশ দেয়া হয়। পাশাপাশি হাইকোর্টের রায়ের পর ভুল তথ্য দিয়ে সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলে রাখায় আপিলকারী ইমাম গাযযালি ট্রাস্ট্রের মহাসচিব আবিদ হাসান দুলাল ও তার আইনজীবী ইমরান সিদ্দিকীকে তিরস্কার করা হয়েছে।


জনস্বার্থে করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১২ সালের ২৬ জুলাই ইমাম গাযযালি ইনস্টিটিউটের দখলে থাকা সুচিত্রা সেনের পৈত্রিক বাড়িটি দখলমুক্ত করে 'সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা' স্থাপনে সরকারকে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।


প্রসঙ্গত, জামায়াত পরিচালিত ইমাম গাযযালি ইনস্টিটিউিট সুচিত্রা সেনের পাবনার পৈত্রিক বাড়িটি একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলে রূপান্তর করে ট্রাস্টের নামে বহু বছর ধরে দখলে রেখেছে। ২০০৯ সালের ১২ জুন পাবনার তৎকালীন জেলা প্রশাসক ইমাম গাজ্জালি ট্রাস্টকে উচ্ছেদের নোটিশ দেয়। কিন্তু তারা দখল ছাড়েনি। আপিল বিভাগের রায় অনুসারে এখন  ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউিটকে উচ্ছেদে আর কোনো বাধা রইল না।


গত ১৭ জানুয়ারি কলকাতায় মারা যান বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি সুচিত্রা সেন। ১৯৩১ সালের ৬ এপ্রিল জন্ম নেয়া সুচিত্রার শৈশব ও কৈশোর কেটেছে পাবনা সদর উপজেলার গোপালপুর মহল্লার হেমসাগর  লেনের ওই বাড়িতে।


 ১৯৫১ সালের মাঝামাঝি সময়ে সুচিত্রা সেনের বাবা পাবনা থেকে সপরিবারে কলকাতায় চলে যান।
- See more at: http://www.dhakatimes24.com/2014/07/16/30950#sthash.pQCT6uXk.dpuf

শেষ পর্যন্ত মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ৩৬ বছর পর মহানায়িকা সূচিত্রা সেনের পিতৃবাড়ির অবৈধভাবে দখল সড়ানোর নির্দেশ দিয়েছে। এখন তা সঠিকভাবে কার্যকর হলেই ভালো। 

(খবরের সূত্র)

দখলের ক্ষেত্রে কোনো হিন্দুই ছাড় পায় না - তো সে বিখ্যাত কোনো ব্যক্তিত্ত্বই হোন আর সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষই হোন।

(কৃতজ্ঞতা)

No comments:

Post a Comment